27 C
Dhaka
১১ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার , ২০১৮ ০৩:১৫:৩৪ অপরাহ্ণ
ভয়েস বাংলা
ক্রিকেট খেলা বিশেষ

বাংলাদেশের স্পিনে কুপোকাত ওয়েস্ট ইন্ডিস

মাজহারুল ইসলাম, চট্টগ্রাম থেকে: যে কোনো উইকেটেই চতুর্থ ইনিংসে ব্যাটিং করা বেশ কঠিন। চতুর্থ ইনিংসে পিস এবং মাঠের কন্ডিশন থাকে ব্যাটিংয়ের প্রতিকূলে। আর চট্টগ্রামের
মাঠ! সে তো আরো কঠিন। বল যেমন টার্ন করছে, তাতে তো ব্যাটিংটা বলতে গেলে অসম্ভবই হয়ে পড়েছে। টাইগারদের দলে বিশ্বমানের স্পিনারদের থাবা যেনো ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য ডাবল পরীক্ষা।

কিন্তু সেই পরীক্ষা দিতে নেমে পাস করার সমূহ সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না ক্যারিবীয়দের। লক্ষ্য মাত্র ২০৪ রানের। তবে বাংলাদেশের স্পিনারদের বিষ ইতিমধ্যেই টের পেতে শুরু করেছে সফরকারিরা। তাইজুল-সাকিবদের ঘূর্ণি জালে পড়ে ১১ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে লাঞ্চে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

উইকেটের টার্নকে কাজে লাগিয়ে ক্যারিবীয় ইনিংসে প্রথম ধাক্কাটি দিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তার দুর্দান্ত এক ডেলিভারি এগিয়ে খেলতে গিয়ে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েছেন কাইরন পাওয়েল, ফিরেছেন গোল্ডেন ডাকে। এর পর ৩ রান করা হোপকেও ফিরিয়েছেন তিনি।

তারপর জোড়া আঘাত তাইজুল ইসলামের। এক ওভারেই দুই এলবিডব্লিউ করে দেন বাঁহাতি এই স্পিনার। ওভারের প্রথম বলে তার শিকার ক্রেইগ ব্রেথওয়েট (৮), পঞ্চম বলে শূন্যতে এলবিডব্লিউ রস্টন চেজ।

এর আগে ১২৫ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস। তবে প্রথম ইনিংসে ৭৮ রানের বড় লিডের সুবাদে ক্যারিবীয়দের সামনে দুইশোর্ধ্ব লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে পেরেছে সাকিব আল হাসানের দল। ৫৫ রানে ৫ উইকেট নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। শুরুতেই ধাক্কা স্বাগতিকদের, মুশফিকুর রহীমের মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসে টাইগাররা।

স্পিনাররা উইকেট থেকে টার্ন পাচ্ছেন। তবে মুশফিক স্পিনে পরাস্ত হননি। ক্যাবিরীয় পেসার শেনন গ্যাব্রিয়েলের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে স্ট্যাম্প উড়ে গেছে তার। ৩৯ বলে ১ বাউন্ডারিতে ১৯ রান করেন তিনি। এরপর সপ্তম উইকেটে ৩৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ একটি জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর মেহেদী মিরাজ। জুটিটি ভাঙেন দেবেন্দ্র বিশু, ১৮ রান করা মিরাজকে টার্নে উইকেটরক্ষক শেন ডোরিচের ক্যাচ বানিয়ে।

অভিষিক্ত নাঈম হাসানকেও ৫ রানে ফিরিয়েছেন বিশু। ক্যারিবীয় লেগস্পিনারের ফ্লাইটেড ডেলিভারিটি বুঝতে না পেরে ব্যাট চালিয়ে দেন নাঈম, স্লিপে দাঁড়িয়ে ক্যাচটি নিতে ভুল করেননি শাই হোপ।

দারুণ খেলছিলেন মাহমুদউল্লাহ, বলতে গেলে একাই দলকে টেনে নিচ্ছিলেন। শেষপর্যন্ত তাকেও থামিয়ে দেন এই বিশু। সুইপ করতে গিয়ে টপএজ হয়ে যান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৪৬ বলে ১টি করে চার ছক্কায় ৩১ রান করেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এটিই সর্বোচ্চ।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৭৩ রাতে ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে সফরকারীরা।

# ভয়েস বাংলা/ এটি

সম্পর্কিত

এশিয়া কাপের পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট

আগাম জামিন পেলেন আব্বাস দম্পতি

ডেস্ক রিপোর্ট

আফগান হতাশা ভুলে ভারত জয়ের আশা মাশরাফির

ডেস্ক রিপোর্ট

রিয়াল থেকে পদত্যাগ ঘোষণা কোচ জিদানের

ডেস্ক রিপোর্ট

শুরুতেই কোনঠাসা জিম্বাবুয়ে

ডেস্ক রিপোর্ট

১৮ রানেই গুটিয়ে গেলো থাইল্যান্ড

ডেস্ক রিপোর্ট

মতামত