প্রযুক্তি ডেস্ক: প্রযুক্তির ইতিবাচক ব্যবহার জনজীবনকে যেমন উন্নত করছে, তেমনি এর অপব্যবহার জনজীবনে নানান বিপত্তি সৃষ্টি করছে। চুরি অথবা ছিনতাই হয়ে যাওয়া মোবাইল ফোনের পরিণতির দিকে তাকালেই ব্যাপারটি স্পষ্ট হবে। এতোদিন মোবাইল চুরি গেলেও তা ফেরত পাওয়ার পথ উন্মুক্ত ছিলো। ঐ মোবাইলের আইএমইআই নম্বর আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দিলেই তারা ট্র্যাক করে সেই ফোন পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারতো। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ফোন ফেরত পাওয়া যেতো। কিন্তু সেই প্রযুক্তিরই অপব্যবহার করে দুষ্টচক্র বদলে ফেলছে মোবাইল ফোনের শনাক্তকরণ নম্বর ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি (আইএমইআই)।

ফলে ফোনটি যথাযথভাবে ট্র্যাক করা যাচ্ছে না। শুধু তাই নয়, আইএমইআই বদলে ফেলায় চোরাই ফোনটি যে কেউ ব্যবহারও করতে পারছে নির্বিঘে। এসব কাজ চালিয়ে যাচ্ছে একাধিক অপরাধচক্র। ইতিমধ্যে এমন একটি চক্রের একজনের কাছ থেকে জানা গেছে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। সে জানিয়েছে, আইএমইআই পাল্টে ফেলতে যে সরঞ্জামাদির প্রয়োজন হয়, রাজধানীর মোতালেব প্লাজার এক ব্যবসায়ী সেগুলো চীন থেকে আমদানি করে। এই সরঞ্জামের মাধ্যমে দুই থেকে তিন মিনিটের মধ্যেই পাল্টে ফেলা সম্ভব যে কোনো মোবাইল সেটের আদি পরিচয়। এসব অপরাধী দেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে চ্যালেঞ্জ করেই প্রযুক্তির অপব্যবহার করছে।

ভয়েস বাংলা # ইই