আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মীরা ১০ বছরের বেশি ভিসা নবায়ন করতে পারবেন। মালয় সরকারের এ ঘোষণায় পর মালিকপক্ষ এবং বিদেশি কর্মীদের মধ্যে হতাশা কাটলো।

গত জুনে দেশটির সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো, বিদেশি কর্মীদের ১০ বছরের বেশি ভিসা দেয়া হবে না। ২২ জুন নোটিশের মাধ্যমে এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় অভিবাসন দফতর। ফলে লক্ষাধিক বাংলাদেশি কর্মীর দেশে ফেরার আশঙ্কা তৈরি হয়েছিলো। মালিকপক্ষও ছিলো শঙ্কায়। পরবর্তী সময়ে সরকার এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে।

বিদেশি কর্মীরা ১০ বছর পর ভিসা নবায়ন করে দেশটিতে ফের অবস্থান করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম কোলাসিগারান। মন্ত্রী জানান, ২৯ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ এ বিষয়ে তাদের সম্মতি প্রকাশ করেছে। ১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে এ সিদ্ধান্ত।

স্থানীয় একাধিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিদেশি কর্মীরা ১০ বছর পর শুধু তিন বছর বা তিনবার তাদের ভিসা নবায়ন করতে পারবেন। তবে, এ সব বিদেশি কর্মী এন্ট্রি পারমিট, স্থায়ীভাবে বসবাস বা মালয়েশিয়ার নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

মালয় সরকারের এমন সিদ্ধান্তের পর হতাশা কেটেছে দেশটিতে কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের মধ্যে। অনেকে সরকারের এমন সিদ্ধান্তে শঙ্কায় ছিলো। কারণ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মালয়েশিয়ায় কাজ করে খরচ উঠিয়ে নিতে পারবেন কিনা তা নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে বেশ হতাশাও লক্ষ্য করা গেছে। মালয়েশিয়ায় একটি শপিংমল-এ কর্মরত বাংলাদেশের শাহিনুর রহমান জানান, তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ একটি শপিংমল-এ কাজ করছেন। কেবল ঋণের বোঝা থেকে মুক্ত হয়ে সুখের প্রহর গুণছেন। এমন সময় মালয়েশিয়া সরকারের ১০ বছর বেশি ভিসা নবায়নের খবরটি তাঁকে বেশ হতাশায় ফেলেছিলো। কিন্তু সরকার সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে যাওয়ায় এখন তিনি বেশ খুশি। ভিসা নবায়ন করে আরো ক’বছর মালয়েশিয়ায় থেকে সাবলম্বী হতে পারবেন বলে অাশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

মালয় সরকারের এমন সিদ্ধান্তে শুধু শাহিনুর রহমান নন, জোহর বারু, পেনাং, সুবাংসহ মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকায় এমন সংবাদ ছড়িয়ে পড়ায় খুশির রেশ পড়েছে।

# ভয়েস বাংলা/ এটি