27 C
Dhaka
১১ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার , ২০১৮ ০৩:০৫:২৮ অপরাহ্ণ
ভয়েস বাংলা
জাতীয় প্রচ্ছদ

নির্বাচনে পক্ষপাতহীনভাবে ম্যাজিস্ট্রেটদের দায়িত্ব পালনের নির্দেশ সিইসির

ভয়েস বাংলা ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের দল ও ব্যক্তির ঊর্ধ্বে থেকে পক্ষপাতহীনভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। গতকাল রবিবার আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন ভবনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নিয়ে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা সংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে এমন নির্দেশ দেন সিইসি।

কে এম নূরুল হুদা বলেন, আপনাদের দায়িত্ব হতে হবে রাজনৈতিকভাবে সৎ। সব প্রার্থীকে সমান চোখে দেখতে হবে। কারো জন্য বেশি দেখা, কারো জন্য কম দেখা-এ ধরনের আচরণ কখনো আপনারা করবেন না। কোনো রাজনৈতিক দলের প্রতি ছাড় দেওয়ার মনোভাব কিংবা দুর্বলতা দেখানো যাবে না। দায়িত্ব পালনের বিষয়টি কঠোরভাবে নিতে হবে। কথায় আছে, হাকিম নড়ে কিন্তু হুকুম নড়ে না। এরকম যেন হুকুম হয়, যেটা নড়বে না কখনো। এই জিনিসগুলো আপনাদের দেখতে হবে।

নির্বাচনের আগ থেকে প্রিজাইডিং অফিসারদের নিরাপত্তা বিষয়ে গুরুত্ব দিতে কঠোর নির্দেশ দেন সিইসি। তিনি বলেন, প্রিজাইডিং অফিসার যেন নিরাপদে থাকে সেদিকে আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে। নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসারের ওপর প্রচুর চাপ থাকে, তাদেরকে সহযোগিতা করবেন। প্রিজাইডিং অফিসারদের কখনো পরিচালনা করতে যাবেন না, তাহলে ভুল হয়ে যাবে। তারা যখন যে সহযোগিতা চাইবে, সেটা করার চেষ্টা করবেন। সহযোগিতা চাওয়ার পরিস্থিতি না থাকলে আপনাদের বিবেক-বিবেচনার প্রয়োগ করবেন।

সভায় কমিশনার মাহবুব তালুকদার দক্ষিণ আফ্রিকার একটি প্রাচীন গল্পের উদ্ধৃতি টেনে বলেন, নিরপেক্ষভাবে আইন প্রয়োগ না করলে তা কালো আইনে পরিণত হয়। কেউ আচরণবিধি ভঙ্গ করলে সে যেই হোক না কেন কঠোর ব্যবস্থা নিবেন। সেনাবাহিনীও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নির্দেশে দায়িত্ব পালন করবেন, সেজন্য দায়িত্বে সচেষ্ট হতে হবে। আমরা কমিশনাররা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের যে শপথ নিয়েছি তা মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মাঝেও সঞ্চারিত হয়ে যাচ্ছে। একাদশ সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক ও পূর্ণাঙ্গ হতে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি জানান, বিশ্ব সম্প্রদায়ও এই নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছে। সেজন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত উত্সব-উদ্দীপনার পরিবেশ ধরে রাখতে হবে।

নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের পরিবেশ খুব একটা অনুকূল নয়, সহজও নয়। মনে রাখবেন, আচরণবিধি, আইন সব সময় আপনাদের পাশে থাকবে। জুডিশিয়াল মাইন্ড নিয়ে যে কোনো সিদ্ধান্ত নিলে খুব বেশি বিপদে পড়বেন না। দায়িত্ব পালনে মাঠ পর্যায়ের এসব কর্মকর্তার নির্লিপ্ততা কিংবা অতি উত্সাহ দুটোই পরিহার করার আহ্বান জানান তিনি। নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের পাশে আছে। বিজিবি ও সেনাবাহিনী আপনাদের নির্দেশের অপেক্ষায় থাকবে। আপনারা তাদেরকে যথাসময়ে নির্দেশনা দেবেন। কোনোভাবেই প্রার্থীর পরিচয় যেন বড় না হয়ে ওঠে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দেশে কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী বলেন, কোনো রকম প্রতিহিংসার পরিবেশ যাতে না তৈরি হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। দায়িত্ব সাহসিকতার সঙ্গে পালন করতে হবে। কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতির উদ্ভব হলে আপনাদের আদেশেই আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী গুলি চালাবে। এক্ষেত্রে জুডিশিয়াল মাইন্ড প্রয়োগ করতে হবে।

ব্রিফিংয়ে আরও বক্তব্য দেন নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ও নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক। বরিশাল, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের প্রায় দুই শতাধিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিনব্যাপী নির্বাচনী আচরণবিধি সংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে অংশ নেন।

# ভয়েস বাংলা/ এটি

সম্পর্কিত

সরাসরি ভিসা ব্যবস্থায় ব্রাজিলে বাংলাদেশিদের সংখ্যা বাড়ছে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রযুক্তিতে আমরা অনেক দূর এগিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট

দুই প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকতেই তিস্তা চুক্তি: শেখ হাসিনা

ডেস্ক রিপোর্ট

ওমানের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘মেকুনু’

ডেস্ক রিপোর্ট

১৬ আগস্টের মধ্যে শ্রমিকদের ঈদ বোনাস দেয়ার নির্দেশ

ডেস্ক রিপোর্ট

বাংলাদেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

ডেস্ক রিপোর্ট

মতামত