25.9 C
Dhaka
২০ নভেম্বর, মঙ্গলবার , ২০১৮ ০৭:১৯:২৫ অপরাহ্ণ
ভয়েস বাংলা
প্রবাস এক্সক্লুসিভ

‘অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীদের জন্য ভারত এখন নরক’: মুখ্যমন্ত্রী, আসাম

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: অবৈধ বাংলাদেশি শুধু আসামের সমস্যা নয়। এমন বাংলাদেশি ভারতের সর্বত্রই আছে। পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খন্ড, বিজার ও দিল্লি মেট্রোপলিটন শহরগুলোও অবৈধ অভিবাসীদের কারণে নরক যন্ত্রণা সইছে। তাই সব রাজ্যে এনআরসি নিশ্চিত করা উচিত। ১০ সেপ্টেম্বর ‘এনআরসি: ডিফেন্ডিং দ্য বর্ডারস, সিকিউরিং দ্য কালচার’ শীর্ষক সেমিনারে এমন মন্তব্য করেছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। ভারতে জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে আসামের নাগরিকত্ব বিষয়ক এনআরসি ইস্যুতে প্রচারণা জোরালো করেছে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। এ ইস্যুতে তাঁরা আসাম থেকে তাঁদের উচ্চাকাঙ্খা পূরণ করতে চায়।

ওই সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন বিজেপির জেনারেল সেক্রেটারি রাম মাধন। তিনি বলেন, এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা থেকে যেসব মানুষ বাদ পড়েছেন তাঁরা আসামে ভোটাধিকার পাবেন না এবং তাঁদেরকে তাঁদের দেশে ফেরত পাঠানো হবে। এনআরসির অধীনে সব অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা নিশ্চিত করা হবে। আমাদের পরবর্তী পদক্ষেপ হবে ভোটার তালিকা থেকে অবৈধ অভিবাসীদের নাম বাতিল করা বা মুছে ফেলা। তারপর সরকারের তরফ থেকে তাঁরা যেসব সুযোগ সুবিধা পায় তার সবকিছু থেকে তাঁদেরকে বঞ্চিত করা। তারপরই তাঁদেরকে ফেরত পাঠানো হবে।

গত ৩০ শে জুলাই আসামের চূড়ান্ত এনআরসি তালিকা প্রকাশ হয়। সেই তালিকার কথা তুলে ধরে সর্বানন্দ সনোয়াল বলেন, ওই তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ৪০ লাখ মানুষ তাঁরা আবার নাগরিকত্ব দাবি করে আবেদন করতে পারেন, তাঁদের আপত্তির কথা জানাতে পারেন। তাঁদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। কারণ, প্রতিজন খাঁটি ভারতীয় নাগরিকের বিষয়ে সরকার যত্মশীল, তাঁদেরকে এনআরসিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। কিন্তু এত বিপুল সংখ্যক মানুষ কিভাবে এনআরসি থেকে বাদ পড়লেন তা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক বিতর্ক। এ বিষয়ে আসামের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, কাজ করতে গিয়ে এখানে-ওখানে ভুলত্রুটি হতেই পারে। তাই আবেদন ও আপত্তির প্রেক্ষিতে সরকার বাদ যাওয়া ব্যক্তিদের নাগরিকত্ব সংশোধনের কাজ করে যাচ্ছে। এমন আবেদন বা আপত্তি যাচাই করা হচ্ছে। যদি কারো নাম এনআরসিতে না থাকে তার মানে এটা নয় যে তিনি বিদেশি বলে চিহ্নিত হবে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবৈধ অভিবাসী ইস্যুতে তাঁর অবস্থান পরিবর্তন করেছেন। তিনি এর বিরোধীতা করছেন। তিনি এখন অবস্থান নিয়েছেন অনুপ্রবেশকারীদের পক্ষে। তিনি বলেন, বর্তমানে আসামের ২৭টি জেলার মধ্যে কমপক্ষে ১১টিকে বলা হয় অনুপ্রবেশকারী সংখ্যাগরিষ্ঠ। এটা আসামের সংস্কৃতি, সমাজ ও রাজনৈতিকভাবে টিকে থাকা নিয়ে প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে। রাম মাধব আরো বলেন, এনআরসি আধুনিকায়ন করা হচ্ছে পক্ষপাতহীন, স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে। প্রতিবেশি দেশগুলোতে যেসব হিন্দু, পারসি, শিখ, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান নির্যাতিত হচ্ছেন তাঁদেরকে স্বাগত জানিয়েছে ভারত। তাঁদের প্রতি বিজেপি সরকারের প্রতিশ্রুতি আছে। যেসব মানুষ বিপদে পড়েন তাঁদেরকে সব সময়ই স্বাগত জানায় ভারত।

সম্পর্কিত

ওমানের প্রসিদ্ধ বাঙ্গালি পাড়া `হামরিয়া’

ডেস্ক রিপোর্ট

জর্ডানে কাজ মিলবে ১৪৪৭ নারী গার্মেন্টসকর্মীর

ডেস্ক রিপোর্ট

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্রের দায়ে বাংলাদেশি যুবকের যাবজ্জীবন

ডেস্ক রিপোর্ট

যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন নীতি নিয়ে অভিনব প্রতিবাদে মার্কিন নারী

ডেস্ক রিপোর্ট

আরএমপি নবায়ন সহজ হচ্ছে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের

ডেস্ক রিপোর্ট

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন পপ তারকা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রাহমি খান

ডেস্ক রিপোর্ট

মতামত