21.7 C
Dhaka
১১ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার , ২০১৮ ০৬:৪০:৩২ অপরাহ্ণ
ভয়েস বাংলা
স্বাস্থ্য

অস্পষ্টতা রয়েই গেছে হাতে লেখা প্রেসক্রিপশনে

নিজস্ব প্রতিবেদক: হাইকোর্ট স্পষ্ট অক্ষরে পড়ার উপযোগী করে চিকিৎসকদের প্রেসক্রিপশন লেখার নির্দেশনা দেন গত বছরের ৯ জানুয়ারি । ৩০ দিনের মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারির জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। ১৭ ফেব্রুয়ারি বিএমডিসি (বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল) এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করে। কিন্তু এখনও হাতে লেখা প্রেসক্রিপশনে অস্পষ্টতা থাকছেই।
রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, হাতে লেখা প্রেসক্রিপশনে কোনও কোনও চিকিৎসক বড় হাতের অক্ষরে এবং স্পষ্টভাবে লিখলেও সবাই তা মানছেন না। আবার কোনও কোনও চিকিৎসক অভিযোগ করেছেন, দেশের সরকারি হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগীর চাপ এতো বেশি, সেখানে নিয়ম-কানুন মানবিক কারণেই শিথিল রাখা উচিত।

বিএমডিসির প্রেসক্রিপশন সংক্রান্ত নির্দেশনায় বলা হয়েছ, চিকিৎসকরা যেন সবসময় ব্যবস্থাপত্রে ওষুধের নাম স্পষ্টাক্ষরে ((CAPITAL LETTER) লেখেন এবং ওষুধের ব্যবহারবিধি স্পষ্ট ও বোধগম্যভাবে লিপিবদ্ধ করেন।
চিকিৎসকরা জানান, একটি প্রেসক্রিপশনে রোগীর নাম, বয়স, তারিখ, ক্ষেত্র বিশেষে শিশুদের ওজন লিখতে হয়। বামদিকে রোগীর কমেপ্লইনগুলো লিখতে হয়। এরপর চিকিৎসক রোগী পরীক্ষা করে কী কী ইনভেস্টিগেশন পেলেন সেগুলো লিখতে হয়। তারপর ডান দিকে আরএক্স চিহৃ দিয়ে ওষুধের নাম লিখতে হয় এবং নিচে চিকিৎসকের স্বাক্ষর দিতে হয়। আর ওষুধ লেখার সময় ট্যাবলেট, ক্যাপসুল বা ইনজেকশন এটা লিখতে হয়। এটা কত মিলি, ডোজ কতটুকু, খাওয়ার আগে না পরে তা লিখতে হয়। সেইসঙ্গে ওষুধের নামটা অবশ্যই ইংরেজিতে লিখতে হয়। কেননা, ইংরেজিতে প্রেসক্রিপশন লিখলে এটা বিশ্বের যেকোনও দেশের চিকিৎসক দেখতে পারবেন। চিকিৎসক কী পরীক্ষা করে লিখেছেন সেটাও জানা যাবে। সাময়িকভাবে যে ট্রিটমেন্ট দেওয়া হয়েছে তা জাস্টিফাইড কিনা তা লেখা থাকতে হবে। ইনভেস্টিগেশনগুলো লেখা থাকবে, এগুলো উল্লেখ না থাকলে অস্পষ্ট প্রেসক্রিপশন হবে। চিকিৎসক কেন রোগীর এমআরআই বা সিটি স্ক্যান করতে দিলেন সেটার উত্তরও প্রেসক্রিপশনে পাওয়া যাবে। কিন্তু চিকিৎসকরা হাইকোর্টের নির্দেশনা মানছেন না। তবে আগের চেয়ে এখন অনেক উন্নতি হয়েছে ।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমরা সমস্ত চিকিৎসককে হাইকোর্টের আদেশ পালন করতে নির্দেশ দিয়েছি। অনেক চিকিৎসক, সবার তো আর খবর নেওয়া সম্ভব হয় না। তবে, আমরা তাদের নির্দেশনা দিয়েছি।’

ভয়েস বাংলা/ওএফ

সম্পর্কিত

উন্নত চিকিত্সার জন্য রোগীদের আর বিদেশে যেতে হবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

ডেস্ক রিপোর্ট

ইনফ্লুয়েঞ্জায় প্রতিদিন ১৭৮০ জনের মৃত্যু

ডেস্ক রিপোর্ট

জরায়ু ক্যান্সার রোধে যেসব বিষয় জানা জরুরি

ডেস্ক রিপোর্ট

ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের ফল শুভ হয় না কখনো

ডেস্ক রিপোর্ট

১০ লাখ মানুষের জন্য ১ জন ফিজিয়াট্রিস্ট

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রসঙ্গ: ডেঙ্গু জ্বর

ডেস্ক রিপোর্ট

মতামত